এবি পার্টির যুগ্ম আহবায়ক সাজু’র রুহের মাগফিরাতের জন্য শোকসভা ও দোয়া অনুষ্ঠান

ঢাকা দেশজুড়ে ধর্ম রাজনীতি
  • 4
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    4
    Shares

প্রেস বিজ্ঞপ্তি :

আজ এবি পার্টির যুগ্ম আহ্বায়ক মরহুম আবু হেনা মোঃ এরশাদ হোসেন সাজু’র রুহের মাগফিরাতের জন্য শোকসভা ও দোয়া অনুষ্ঠান কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে ভার্চুয়ালি দেশ ও প্রবাসের শোকাহত নেতা-কর্মীরা অংশ নেন।

এবি পার্টির আহবায়ক সাবেক সচিব জনাব এএফএম সোলায়মান চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও সদস্য সচিব মজিবুর রহমান মন্জুর পরিচালনায় অনুষ্ঠিত উক্ত সভায় এরশাদ হোসেন সাজু’র কর্মময়, স্মৃতি বহুল জীবনের উপর আলোচনা রাখেন সিনিয়র আইনজীবী ও রাজনীতিবিদ এবি পার্টির প্রধান উপদেষ্টা ব্যারিস্টার আব্দুর রাজ্জাক, রাষ্ট্রবিজ্ঞানী অধ্যাপক ড. দিলারা চৌধুরী, বিশিষ্ট অভিনেত্রী আরজুমান্দ আরা বকুল, জাতীয় পার্টির নেতা কমান্ডার (অব.) শাব্বির আহমদ, এই বেলা সম্পাদক শ্রী সুকৃতি কুমার মন্ডল, মরহুমের স্ত্রী রেহানা বেগম, একমাত্র পুত্র আবু রাইয়ান আশয়ারি রছি ও মরহুমের ছোট ভাই গোলাম রাব্বানি জুলফি।

দলের পক্ষ থেকে স্মৃতিচারণ করেন এবি পার্টির কেন্দ্রীয় যুগ্ম আহবায়ক যথাক্রমে অধ্যাপক ডাঃ মেজর অবঃ আব্দুল ওহাব মিনার, বিশিষ্ট আইনজীবী তাজুল ইসলাম, জননেতা আলহাজ্ব জাহাঙ্গীর কাসেম, এ্যাড. গোলাম ফারুক, এবি পার্টি ইউকে’র আহ্বায়ক হারুন অর রশিদ, দলের যুগ্ম সদস্য সচিব ব্যারিস্টার আসাদুজ্জামান ফুয়াদ, ব্যারিস্টার জুবায়ের আহমেদ ভুইঁয়া ও বিএম নাজমুল হক, সহকারী সদস্য সচিব আব্দুল্লাহ আল মামুন রানা, ব্যারিস্টার সানী আব্দুল হক, আনোয়ার সাদাত টুটুল, এবিএম খালিদ হাসান, শাহ আব্দুর রহমান, ঢাকা মহানগর উত্তরের সমন্বয়ক নাজমুল হুদা অপু, মহানগর দক্ষিণের আহ্বায়ক এএফএম ওবায়দুল্লাহ মামুন, গাজীপুর জেলা আহবায়ক আমজাদ খান রংপুর জেলা আহবায়ক আবদুল বাসেত মারজান, কক্সবাজার জেলা সদস্য সচিব এ্যাড. গোলাম ফারুক খান কায়সার, খুলনা জেলা সমন্বয়ক এস এম আকতারুজ্জামান, নীলফামারী জেলা আহবায়ক অধ্যাপক আবু হেলাল, ঢাকা মহানগর দক্ষিণের যুগ্ম আহ্বায়ক জননেতা কবীর হোসেন, গাইবান্ধা জেলা সদস্য সচিব মর্তুজা খান, কেন্দ্রীয় নেত্রী ব্যারিস্টার নাসরীন সুলতানা মিলি, নুসরাত তামান্না ফারুকী, ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সদস্য সচিব আব্দুল্লাহ আল হাসান সাকিব, মহানগর উত্তরের নেত্রী রেখা আক্তার সহ পার্টির নেতৃবৃন্দ।

আলোচনায় ব্যারিস্টার আব্দুর রাজ্জাক বলেন, আবু হেনা এরশাদ হেসেন সাজু ছিলেন আমাদের পার্টির অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা এবং বৃহত্তর রংপুর অঞ্চলের গণমানুষের নেতা। এই রকম জনপ্রিয় নেতা দেশ, জাতি ও দলের জন্য খুবই প্রয়োজন। আমি দোয়া করি আল্লাহ তায়ালা যেন সাজু ভাইকে জান্নাতুল ফেরদৌস দান করেন এবং তার পরিবারের প্রতি রহমত করেন।

অধ্যাপক ড. দিলারা চৌধুরী বলেন, এরশাদ হোসেন সাজু ছিলেন একজন দানবীর ও মানবতাবাদী নেতা। অল্প সময়ে মানুষকে আন্তরিক ভাবে কাছে টেনে নেওয়ার দূর্লভ গুণাবলী তাঁর ছিলো। তিনি আমাকে তাঁর এলাকায় যাওয়ার দাওয়াত দিয়েছিলেন, তাঁর সাথে যাওয়ার সুযোগ হলোনা। এবি পার্টিকে এখন ওনার অসমাপ্ত কাজ তার পরিবারকে সাথে নিয়ে এগিয়ে নিতে হবে। আল্লাহ তায়ালা মরহুমকে জান্নাত দান করুন।

ডাঃ আব্দুল ওহাব মিনার বলেন, এরশাদ হোসেন সাজু ছিলেন আমার ভাই ও বন্ধু। তাঁর সাথে আমার ছিলো আত্মার সম্পর্ক। সাজু ভাইয়ের সাথে সমাজ সেবামূলক কাজে যোগ দিতে পেরে আমি আজ নিজেকে ধন্য মনে করছি।

এ্যাড. তাজুল ইসলাম বলেন, সাজু ভাই ছিলেন পার্টির ফুটন্ত গোলাপ যার সুবাস আমরা পূর্নভাবে নেওয়ার আগেই আল্লাহ তায়ালার প্রিয় হয়েছেন। ওনার মতো নেতা হতে পারাটা সত্যিই গর্বের। আল্লাহ তায়ালা তাকে জান্নাতুল ফেরদৌস দান করুন।

অভিনেত্রী ও শিল্পী আরজুমান্দ আরা বকুল বলেন এরশাদ হোসেন সাজুর সাথে একদিনের পরিচয়ে তিনি আমার খুব আপন হয়ে গিয়েছিলেন। ভুট্টা চাষের ব্যপারে তার যে পদক্ষেপ সেটা আমাদের জাতীয় জীবনের এক বিরাট অর্জন।

এরশাদ হোসেন সাজু’র সহধর্মীনি স্কুল শিক্ষক রেহানা বেগম স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন। তিনি বলেন আপনাদের ভাই ছিলেন আপনাদের জন্য নিবেদিত। এবি পার্টি ছিল তাঁর ধ্যান জ্ঞান। তিনি সবার কাছে তাঁর মাগফিরাতের জন্য দোয়া চান।

মরহুমের একমাত্র পুত্র আবু রাইয়ান আশয়ারি রছি বলেন আমরা পরিবারের পক্ষ থেকে এবি পার্টিকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাই। আপনারা দোয়া করবেন আমরা যেন বাবা’র আদর্শ ও কর্মের স্বপ্ন বাস্তবায়ন করতে পারি।

এবি পর্টির সদস্য সচিব মজিবুর রহমান মন্জু আবেগাপ্লুত কণ্ঠে স্মৃতিচারণ করে বলেন এরশাদ হোসেন সাজু বহুমাত্রিক ব্যক্তিত্বের অধিকারী ছিলেন। তিনি ভাল খেলোয়াড়, দক্ষ সংগঠক, জনপ্রিয় রাজনৈতিক নেতা, সফল ব্যবসায়ী এবং একজন সৃষ্টিশীল কৃষিবিদ ছিলেন। তার আদর্শ অনুসরণ করে উত্তর বঙ্গের ঘরে ঘরে এবি পার্টির দৃঢ় ভিত্তি তৈরী করার জন্য তিনি অঙ্গীকার ব্যাক্ত করেন।

সভাপতির বক্তব্যে এএফএম সোলায়মান চৌধুরী বলেন এরশাদ হেসেন সাজু মাটি ও মানুষের সাথে মিশে সোনার ফসল ফলানোর স্বপ্ন দেখেছিলেন। তিনি ঘৃণা ছড়ানোর বিপরীতে ভালবাসার বন্ধনে মানুষকে আবদ্ধ করার রাজনীতি করেছেন। তিনি এবি পার্টির সর্বস্তরের নেতা-কর্মীদের কে এরশাদ হোসেন সাজু’র অসমাপ্ত কাজ এগিয়ে নেয়ার দায়িত্ব কাঁধে তুলে নেয়ার আহ্বান জানান।

সভা শেষে মরহুমের আত্মার মাগফিরাতের জন্য দোয়া করা হয় এবং এরশাদ হোসেন সাজু’র ইছালে সওয়াবের উদ্দেশ্যে ছিন্নমূল মানুষদের মাঝে ইফতার বিতরন করা হয়।