ঘুষের নগদ টাকাসহ চকরিয়ার সাব-রেজিস্ট্রার আটক

আইন ও প্রশাসন উপজেলা চট্টগ্রাম প্রধান সংবাদ
  • 103
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    103
    Shares

স্টাফ রিপোর্টার (সিডব্লিউ) :

চকরিয়ায় টানা ৮ঘণ্টা দীর্ঘ অভিযানে ভুক্তভোগিদের অভিযোগের সত্যতা পাওয়ায় লেনদেনকৃত ঘুষের নগদ ৬লাখ ৪২হাজার ১শ’ টাকাসহ সাব-রেজিস্ট্রার মো. নাহিদুজ্জামান ও অফিস মোহরার দুর্জয় কান্তি পালকে আটক করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৬টা থেকে শুরু হওয়া এ অভিযান শুক্রবার ভোররাত ৩টা পর্যন্ত চলে। এতে নেতৃত্ব দেন দুদক সমন্বিত জেলা কার্যালয় চট্টগ্রাম-২ এর সহকারী পরিচালক মো. রিয়াজ উদ্দিন।

আটক সাব-রেজিস্ট্রার মো. নাহিদুজ্জামান নাটোরের গুরুদাসপুরের উত্তর নাড়িবাড়ি গ্রামের মো. মোজাম্মেল হক ছেলে এবং অফিস মোহরার দুর্জয় কান্তি পাল কক্সবাজার সদর উপজেলার খুরুশকুল ইউনিয়নের জনৈক মধুরাম পালের ছেলে। এছাড়া পলাতক অফিস সহকারী শ্যামল বড়ুয়া কক্সবাজার শহরের মোহাজের পাড়ার দীনবন্ধু বড়ুয়ার ছেলে।

দুদক সূত্রে জানা গেছে, ভুক্তভোগিদের অভিযোগের প্রেক্ষিতে দুদকের একটি দল ছদ্মবেশে বৃহস্পতিবার দুপুর থেকে চকরিয়া সাব-রেজিস্ট্রারের কার্যালয়ে অবস্থান নেয়। ঘুষ লেনদেনের বিষয়টি নিশ্চিত হওয়ার পর সন্ধ্যা ৬টার দিকে চট্টগ্রাম-২ এর সহকারী পরিচালক মো. রিয়াজ উদ্দিনের নেতৃত্বে তারা অভিযান শুরু করে। অভিযান শেষ হয় শুক্রবার ভোররাত ৩টার দিকে। অভিযানের সময় অফিস সহকারী শ্যামল বড়ুয়া কৌশলে পালিয়ে যায়।

অভিযানে নেতৃত্বদানকারী চট্টগ্রাম-২ এর সহকারী পরিচালক মো. রিয়াজ উদ্দিন জানান, সাব-রেজিস্ট্রারের রেকর্ড রুমের লকার থেকে এক লাখ ৯২ হাজার ৫৫০ টাকা, অফিস সহকারীর টেবিলের ড্রয়ার থেকে দুই লাখ ৮৯ হাজার ৫৫০ টাকা ও অফিস মোহরারের ড্রয়ার থেকে এক লাখ ৬০হাজার টাকা পাওয়া গেছে। টাকাগুলোর বিষয়ে তারা (সংশ্লিষ্টরা) সন্তোষজনক ব্যাখ্যা দিতে পারেননি।
তিনি আরো জানান, মামলার প্রস্তুতি চলছে। সাব-রেজিস্ট্রারসহ আটক দুইজনকে কক্সবাজারের সিনিয়র স্পেশাল জজ আদালতে সোপর্দ করা হবে।