ছাত্রলীগ নেতা তানবীরের প্রচেষ্টায় ১০ মাসে ১৫০ জন প্রতিবন্ধী পেলেন সহায়তা

সংগঠন স্থানীয় বার্তা
  • 21
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    21
    Shares

ইউসুফ বিন হোসাইন, চকরিয়া (কক্সবাজার) প্রতিনিধি:

প্রতিবন্ধীর বন্ধু আলী তানবীরের প্রচেষ্টায় ১১ মার্চ (বৃহস্পতিবার) সকাল ১১ টা ৩০ মিনিটের দিকে চকরিয়া উপজেলা প্রঙ্গনে ৮জন প্রতিবন্ধী শিশুদের নিয়ে একটা প্রোগ্রামের আয়োজন করেন। এই অনুষ্ঠানে ৬জনকে সার্জিক্যাল হুইল চেয়ার,একজনকে সার্জিক্যাল জুতা। তৃতীয় শ্রেণীতে পড়ুয়া তামান্নাকে কৃত্রিম পা প্রদান করেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার সৈয়দ শামসুল তাবরীজ বলেন,চকরিয়ার সকল প্রতিবন্ধীদের মান উন্নয়নের জন্য শীঘ্রই একটা ট্রেনিং সেন্টার চালু করব। প্রশিক্ষণের মাধ্যমে তাদেরকে স্বাবলম্বী করা হবে।

এছাড়া উক্ত অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, দৈনিক কালের কন্ঠের চকরিয়া প্রতিনিধি ছোটন কান্তি নাথ, রাগিব আহসান, দৈনিক ইনফো বাংলা প্রতিনিধি মোঃ মিজানুর রহমান, চট্রগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র দিদারুল ইসলাম, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র রাশেদ রনি, মুজিবুল হক ও ফয়েজ উল্লাহ।

বিশ্ব মহামারী করোনা ভাইরাসের কারণে যখন সারা বিশ্ব অচল হয়ে যায় তখন সমস্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেওয়ার জন্য সরকারি ভাবে ঘোষণা হয়। তখন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী হিসাবে অধ্যয়ন রত চকরিয়া উপজেলা কৈয়ারবিল ইউনিয়নের খিলছাদক এলাকার ছেলে আলী তানবীর গ্রামের বাড়িতে চলে আসে।

আলী তানবীর বলেন, ছোট কাল থেকে মুখগহ্বরে জন্মগতভাবে ত্রুটি ছিল আমার। এই সমস্যার করণে শ্বাস নিতে ও কথা বলতে সমস্যা হতো। আমাকে নিয়ে মা-বাবার দুশ্চিন্তা আর ভোগান্তির কথা বড় হয়ে শুনেছি। চিকিৎসার পর আমি এখন পুরোপুরি সুস্থ। আমার শৈশবের এই প্রতিবন্ধিতা নিয়ে মা-বাবার কাছে অনেক গল্প শুনেছি আমি। আমার প্রতিজ্ঞা ছিল সময় সুযোগ হলে আমি প্রতিবন্ধীদের পাশে থেকে কাজ করবো।সেই থেকে আমার প্রতিবন্ধীদের উপরে সহানুভূতি তৈরী হয় আমার মনে। তাই আমি প্রতিবন্ধীদের নিয়ে কাজ শুরু করি।

প্রতিবন্ধীদের নিয়ে কাজ করতে কি করতে হয় জানতে চাইলে আলী তানবীর বলেন, বিভিন্ন এলাকায় গিয়ে প্রতিবন্ধীদের খুঁজে বের করেন তিনি। তাদের সমস্যার কথা ফেইসবুক লিখে জানান। সেই পোস্ট দেখে অনেক মহৎ মানুষ সহায়তা দিতে আগ্রহ প্রকাশ করে। সেই সহায়তা পৌঁছে দেন প্রতিবন্ধীদের মাঝে। গত ১০মাসে ১৫০ জন প্রতিবন্ধীকে তিনি বিভিন্ন ভাবে সহায়তা করেছেন। এবং ৬৮ জন প্রতিবন্ধীকে হুইলচেয়ার ও বিভিন্ন সহায়ক উপকরণ সামগ্রী বিতরণ করেন।তাছাড়া গত দুইমাস আগে এক্সিডেন্টে পা হারানো দুজন ব্যক্তিকে ট্রাই সাইকেল কিনে দেন।এক প্রতিবন্ধী দম্পতির বিয়ের ব্যবস্থা করেন।

আর এসব সহায়তা তিনি করেছেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুক ব্যবহার করে। এখন আলী তানবীর প্রতিবন্ধীদের বন্ধু হিসাবে সবার কাছে পরিচয় পেয়েছেন।